আজ ১৬ আশ্বিন ১৪২৯, রবিবার ০২ অক্টোবর ২০২২ , ৫:০৯ পূর্বাহ্ণ

আমজাদ হোসেন, শুধু কবি নয়


০৩ আগস্ট ২০২১ মঙ্গলবার, ১১:৪১  পিএম

সময় নারায়ণগঞ্জ


আমজাদ হোসেন, শুধু কবি নয়

আহমেদ বাবলু: আমজাদ হোসেনকে তাঁর শহর (নারায়ণগঞ্জ) কবি হিসেবেই চেনে। কৈশোরে আমিও যখন দুরু দুরু বুকে এই শহরের সাহিত্য সভায় হাজির হই, তখন থেকেই আমজাদ ভাইকে কবি হিসেবে প্রায় প্রতিটি সভাতেই দেখতে পেতাম। তরুণ কবিদের কবিতা পাঠের পর আমজাদ ভাই তা নিয়ে আলোচনা করতেন। সেটা দসাহিত্য জোটদ দঅনুপ্রাসদ কিংবা দপ্রগতি সাহিত্য পরিষদদ যাইহোক, সব সংগঠনকেই শ্রদ্ধার সঙ্গে আমজাদ ভাইকে আসন দিতে দেখেছি। নারায়ণগঞ্জ শহরে সাহিত্য সংগঠক হিসেবেও আমজাদ ভাই ছিলেন একেবারে প্রথম সারিতে।

আরও পরে এসে আমজাদ ভাইয়ের আরেকটি পরিচয় পাই। সেটা অভিনেতা হিসেবে। নারায়ণগঞ্জ থিয়েটারের কর্মী ছিলেন তিনি। আমার বোন মণি খন্দকারের অভিনয়ের সূত্রে আমজাদ ভাইকে আরও কিছুটা অন্য ভাবে জানা । একেবারে জেন্টলম্যান বলতে যা বোঝায় তিনি তাই। সদালাপী কিন্তু মৃদুভাষী। অনেকটা অনুচ্চ স্বরে কথা বলতেন তিনি। যখনই দেখা হতো, জানতে চাইতেন কেমন আছি, আমার বোন কেমন আছে। জানতে চাইতেন আমার দুলাভাই আহাদ খন্দকার বাইবেলের কথাও। কারণ তিনিও অভিনয় করতেন তখন।

আমজাদ ভাইকে চিনি সম্ভবত ৮৬ সাল থেকে। কিন্তু তারও অনেক অনেক বছর পর জানতে পারি কবি আমজাদ হোসেন শুধু কবিতা আর অভিনয়েই যুক্ত ছিলেন না, ছিলেন চলচ্চিত্র মাধ্যমেও। এবং যে চলচ্চিত্রটির সাথে তাঁর নাম জড়িয়ে আছে সেই চলচ্চিত্রটিও একটি ইতিহাস। ঋত্বিক ঘটকের দতিতাস একটি নদীর নামদ চলচ্চিত্রে তিনি ছিলেন ছবিটির সহ পরিচালক! সাথে এই শহরেরই আরেক খ্যাতনামা চলচ্চিত্রকার তমিজ উদ্দীন রিজভি। তমিজ ভাই নারায়ণগঞ্জ থিয়েটারেরও কর্তা ব্যক্তি ছিলেন।

তিতাস একটি নদীর নাম ছাড়া আর কোনো চলচ্চিত্রে তিনি কাজ করেছিলেন কিনা আমার জানা নেই। আমাদের শহর এই রাষ্ট্রের মতোই ইতিহাস বিমুখ। সুতরাং কবি নামের আড়ালে একজন আমজাদ হোসেনের শিল্প বিস্তৃতি কতখানি ছিলো তা জানা যায় না। যদিও আমরা অল্প বিস্তর এও জানি তিনি শিক্ষকতা করেছেন, করেছেন সম্ভবত সাংবাদিকতাও।

কিন্তু সবচে বড় পরিচয় তিনি কবি। যদিও দুঃখজনকভাবে মৃত্যুর পর তাঁকে নিয়ে যেসব পোস্ট দেখেছি সেখানে বেশিরভাগ পোস্টেই তাঁর সন্তানের পরিচয়ে আমজাদ হোসেনকে পরিচয় করিয়ে দিতে দেখলাম। সন্তানের বড় পরিচয় পিতার জন্য অবশ্যই গৌরবের, কিন্তু একজন আমজাদ হোসেন আরও বেশি গৌরব ধারণ করবার মতো ব্যক্তি। তাঁর জীবন ও কর্মঘনিষ্ঠ যেসব প্রবীণ সংস্কৃতি কর্মী আছেন আমরা আশা করব তাঁরা আমজাদ হোসেন এর সামগ্রিক কর্ম জীবন তুলে ধরবেন আমাদের সামনে। এটা সংস্কৃতির দায়। এ ব্যাপারে তাঁর সন্তানরাও হয়ত ভূমিকা রাখতে পারেন। আমজাদ ভাইয়ের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা রইল।

লেখক: আহমেদ বাবলু, কবি
উল্লেখ্য, গত ১ আগস্ট করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান কবি আমজাদ হোসেন।

সময় নারায়নগঞ্জ.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:

মুক্তমত -এর সর্বশেষ