আজ ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, রবিবার ০২ অক্টোবর ২০২২ , ৬:২৭ পূর্বাহ্ণ

শ্রমিক লীগের সভায় আ’লীগের বাধা


২৩ জুলাই ২০২২ শনিবার, ০৬:১৮  পিএম

সময় নারায়ণগঞ্জ


শ্রমিক লীগের সভায় আ’লীগের বাধা

স্টাফ রিপোর্টার : শ্রমিক লীগের কর্মী সভায় বাধা দিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা। এমন অভিযোগ ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম শওকত আলীর বিরুদ্ধে। এ নিয়ে স্থানীয় শ্রমিক লীগ নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। গতকাল শুক্রবার ফতুল্লার বক্তাবলী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের প্রসন্ন নগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল কর্মী সভার আয়োজন করে জাতীয় শ্রমিক লীগ প্রস্তাবিত বক্তাবলী ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ। বিকেল ৪টায় বক্তাবলীর ৮নং ওয়ার্ডের প্রসন্ন নগর এলাকায় ওই কর্মী সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সভায় প্রধান অতিথি করা হয় ফতুল্লা থানা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবিরকে।

পূর্ব নির্ধারিত ওই কর্মসূচি পালনের জন্য শ্রমিক লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা প্রসন্ন নগর এলাকায় সভার প্যান্ডেল চেয়ার ও মঞ্চ প্রস্তুত করেছিলেন। তবে, ওই স্থানে শ্রমিক লীগের সভা করতে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ উঠে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম শওকত আলীর বিরুদ্ধে।

পরবর্তীতে পাশের একটি স্থানে সভা করার চেষ্টা করা হলেও সেখানেও বাধা দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন শ্রমিক লীগের নেতারা। অতঃপর বক্তাবলীর ৫নং ওয়ার্ডের রামনগর ঈদগাহ মাঠে শ্রমিক লীগের সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শ্রমিক লীগের সভায় বাধা দেয়ার অভিযোগের বিষয়ে জানতে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলীর মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তাই তার পক্ষ থেকে কোন প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

এদিকে, নির্ধারিত স্থানে শ্রমিক লীগের সভা করতে না দেয়াকে কেন্দ্র করে ক্ষোভে ফুসছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা। বিষয়টি দুঃখ ও লজ্জাজনক বলেও মন্তব্য করছেন শ্রমিক নেতারা।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ বলেন, আমাদেরকে প্রতিহতের চেষ্টা করার কথা জঙ্গিবাদ ও জামায়াত বিএনপির। সেখানে আমাদের অভিভাবক সংগঠন আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতারা যদি সহযোগি সংগঠন শ্রমিক লীগের কর্মী সভাকে বাধাগ্রস্থ করে, সেটা দুঃখজনক ও অত্যন্ত লজ্জা জনক। কোন উদ্দেশ্যে শ্রমিক লীগের কর্মসূচি বাধাগ্রস্থ করতে চায়, তা আমার জানা নেই।’

তিনি বলেন, ‘সামনে এক-দেড় বছর পর নির্বাচন। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে যেখানে কর্মীদের উজ্জীবিত ও একত্রিত করতে হবে, সেখানে এই ধরনের কাজ দলের পক্ষে গেল নাকি বিপক্ষে গেল সেটা আমার প্রশ্ন। এমন কাজ যেন ভবিষ্যতে না হয়, সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। যারা এ লজ্জাজনক কাজ করেছেন, তাদের বলতে চাই ভবিষ্যতে যেন এই ধরনের কাজ ২য় বার না হয়। কারণ আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য আওয়ামী লীগের সহযোগি সংগঠনগুলোকে এগিয়ে নিতে হবে।’

তথ্য বলছে, স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবেন- এমনটা প্রকাশ পেয়েছে বহু আগেই। এম শতকত আলী সাংসদ শামীম ওসমানের অনুসারী। আর বক্তাবলী ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের নেতারা সাংগঠনিক কারণেই কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশের নেতৃত্বে সংগঠন করেন। তাই রাজনৈতিক বৈরিতার কারণেই বক্তাবলীতে শ্রমিক লীগের কর্মসূচিতে বাধা দিয়েছেন ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় শ্রমিক লীগের ফতুল্লা থানা আঞ্চলিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস.এম হুমায়ুন কবির বলেন, ‘প্রসন্ন নগরে বক্তাবলী ইউনিয়ন প্রস্তাবিত শ্রমিক লীগের কর্মী সভার স্থান নির্ধারণ করা হয়েছিল। দুঃখের বিষয় হলো ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এম শওকত আলী ওই স্থানে সভা করতে দেয়নি। পরবর্তীতে নির্ধারিত ২য় স্থানটিতেও তারা সভা করতে দেয়নি। অতঃপর ৫নং ওয়ার্ডের রামনগর ঈদগাহ মাঠে ওই সভা অনুষ্ঠিত হয়।’

তিনি বলেন, ‘মূল দলের নেতারা শ্রমিক লীগ নেতাকর্মীদের অভিভাবক। তাই থানা আওয়ামী লীগের নেতা হিসেবে এম শওকত আলী সাহেবের উচিৎ ছিলো যে, তিনি নিজে উপস্থিত থেকে শ্রমিক লীগের কর্মসূচি সফল করার। কিন্তু দুঃখের বিষয়, তিনিই শ্রমিক লীগের সভায় বাধা দিয়েছেন। অথচ আমরা জেনেছি যে, যেখানে আমাদের সভা করতে দেয়া হয়নি, সেখানে ইতিপূর্বে বিএনপি নেতারা সফল ভাবে কর্মসূচি পালন করেছিল।’

সময় নারায়নগঞ্জ.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:

রাজনীতি -এর সর্বশেষ